HomeNewsকোন সরকারি দপ্তরে কতজন কর্মী রয়েছেন জানতে উদ্যোগ নবান্নের, কিসের ইঙ্গিত?

কোন সরকারি দপ্তরে কতজন কর্মী রয়েছেন জানতে উদ্যোগ নবান্নের, কিসের ইঙ্গিত?

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের(WB Government) উদ্যোগে সরকারি কর্মী নিয়োগের জন্য নতুন করে স্টাফ সিলেকশন কমিশন (Staff Selection Commission) গঠন করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে। রাজ্যের প্রশাসনিক মহল আশা করছে ২০২৪ সালের লোকসভার ভোটের(Loksava Election) আগেই বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে কর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু করে দেবে রাজ্য প্রশাসন। তবে বর্তমানে রাজ্য সরকারের কোন কোন দপ্তরে কত সংখ্যক কর্মী কর্মরত রয়েছেন, তা জানতেন নতুন উদ্যোগ নিল নবান্ন।

গত সপ্তাহে কর্মীবর্গ ও প্রশাসনিক সংস্কার দপ্তর এই সম্পর্কিত একটি চিঠি রাজ্যের সমস্ত সরকারি দপ্তরে পাঠিয়েছে। প্রতিটি দপ্তরকে একটি নির্দিষ্ট ফরম্যাট মেনে কর্মরত কর্মীদের বিষয়ে নানা তথ্য পাঠাতে বলা হয়েছে চিঠিতে। চিঠিতে বলা হয়েছে জরুরি ভিত্তিতে এই কাজটি আগামী দু মাসের মধ্যেই সম্পূর্ণ করে দপ্তরগুলিকে রিপোর্ট জমা করতে হবে। প্রতিটি দপ্তরে মোট চার ধরনের কর্মীর হিসাব চাওয়া হয়েছে।

চিঠিতে জানতে চাওয়া হয়েছে নিম্নপদস্থ আঞ্চলিক অ্যাসিস্ট্যান্ট, উচ্চ পদস্থ আঞ্চলিক অ্যাসিস্ট্যান্ট, সেকশন অফিসার, প্রধান অ্যাসিস্ট্যান্ট পদে কতজন কর্মরত রয়েছেন। গত ৩০ জুন পর্যন্ত বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে যে সমস্ত কর্মীরা কাজ করেছেন, তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চেয়ে এই চিঠি পাঠানো হয়েছে।

See also  বদল হলো স্কুলের সময়। জুন মাসে কখন স্কুলের সময় হলো জানুন।

অন্যান্য মহল মনে করছে যে বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের বর্তমানে কতজন কর্মরত রয়েছে এবং কতগুলি শূন্যপদ রয়েছে তা জানতেই এই উদ্যোগ নিয়েছে নবান্ন।

কিছুদিন আগেই নবান্নের একটি সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যে এক বছরের মধ্যে রাজ্যে মোট ১ লক্ষ ২৫ হাজার কর্মী নিয়োগ করা হবে।

কোন কোন পদে কতজন কর্মী নিয়োগ করা হবে দেখুন:

প্রাথমিক: ১১০০০ জন।
উচ্চ প্রাথমিক: ১৪৫০০ জন।
কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়: ২,২০০ জন অধ্যাপক।
পুলিশ বাহিনীর বিভিন্ন পদ: ২০,০০০ জন।
Excise Constable: ৩০০০ জন।
Group D: ১২,০০০ জন।
Group C: ৩,০০০ জন।
স্বাস্থ্য দফতরে ডাক্তার: ২০০০ জন।
নার্স: ৭,০০০ জন।
কমিনিউটি হেল্থ ওয়ার্কার: ২০০০ জন।
ASHA কর্মী:৭০০০ জন।
অঙ্গনওয়াড়ি ওয়ার্কার: ৯,৪৯৩ জন।
অঙ্গনওয়াড়ি হেপ্পার: ১৩,৯২৬ জন।
রাজ্য সরকারের অন্যান্য পদে: প্রায় ১৭,৮০০ জন।

অনেকে আবার মনে করছেন সমস্ত দপ্তরে কর্মীদের পদোন্নতি সংক্রান্ত বিষয়গুলি সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা পেতেই এই উদ্যোগ নিয়েছেন নবান্ন। অনেকে আবার মনে করছেন বর্তমানে রাজ্যের বিরুদ্ধে যে বকেয়া মহার্ঘ ভাতা(DA) সংক্রান্ত মামলাটি চলছে সেই সম্পর্কিত কোন কারনেই কর্মরত কর্মীদের সংখ্যা জানতে চাচ্ছেন নবান্ন। রাজ্য সরকারের উকিল জানিয়েছিল যে, সমস্ত বকেয়া মহার্ঘ ভাতা দিতে রাজ্য সরকারের খরচ হতে পারে প্রায় ৪২ হাজার কোটি টাকা। সেই হিসাব মেলানোর জন্যও নবান্ন এই কর্মী গণনার উদ্যোগ নিয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে।

See also  অবশেষে MAKAUT CET এর পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হলো। কবে জানুন?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

RELATED ARTICLES

Most Popular