HomeEducation Newsমাধ্যমিকের পর সায়েন্স, আর্টস নাকি কমার্স - কোনটা নিয়ে পড়লে ভালো হবে...

মাধ্যমিকের পর সায়েন্স, আর্টস নাকি কমার্স – কোনটা নিয়ে পড়লে ভালো হবে জেনে নাও।

কিছুদিন পরেই প্রকাশিত হতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল। যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীরা মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিলে, তাদের মধ্যে বেশ অনেকেই বিগত বেশ কয়েক মাস ধরে নিশ্চিন্তে আছো বলা চলে। আবার অনেক ছাত্রছাত্রীরা আছো, যারা এখনই তাদের স্ট্রিম বেছে নিয়ে পড়াশোনা শুরু করে দিয়েছো।

মাধ্যমিকের পর ছাত্রছাত্রীদের জন্য মূলত তিনটি স্ট্রিম এর অপশন খোলা থাকে। বিজ্ঞান বিভাগ বাণিজ্য বিভাগ এবং কলা বিভাগ। ইংরেজিতে যাকে বলা হয় সায়েন্স, কমার্স এবং আর্টস। তবে মাধ্যমিক দেবার পর অনেক ছাত্র-ছাত্রীরা বুঝতে পারেন না তাদেরকে ভবিষ্যতে কোন স্ট্রিম নিয়ে পড়াশোনা করতে হবে, বা তারা কোন স্টিম নিয়ে পড়াশোনা করা চালিয়ে যেতে পারবে। (Which stream is better to study after madhyamik?)

প্রথমেই বুঝতে হবে কোন স্ট্রিম নিয়ে পড়াশোনা করতে হবে। স্ট্রিম বাছাই করার ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি জিনিস মাথায় রাখতে হবে। সেগুলি আগে জেনে নিন।

১. অনেক সময় দেখা যায় কোন ছাত্র-ছাত্রী আর্টস এর বিষয়ে ভালো, কিন্তু তার বাড়ি থেকে চায় সে মাধ্যমিকের পর সায়েন্স নিয়ে পড়াশোনা করুক। এরকম অবস্থার মধ্যে যদি কারো পড়তে হয়, তাহলে তোমরা নিঃসন্দেহে নিজেদের মনের কথা শুনবে। তোমার অমতে যদি কোন বিষয় জোর করে তোমাদের উপর চাপিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে ভবিষ্যতে অনেক প্রেসার পড়বে তোমাদের জীবনে। প্রথমত পড়াশোনার মান খারাপ হতে পারে, তাছাড়া অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতিদ্বন্দিতা করতে গিয়েও পিছিয়ে যেতে পারো। এজন্য সব সময় নিজের পছন্দের বিষয়টিকেই বেছে নাও, সেটি নিয়ে ভালোভাবে পড়াশোনা করে এগিয়ে যাও। সামনে অনেক পথ খোলা থাকবে।

২. অনেক সময় দেখা যায় যে ক্লাসের ভালো একজন বন্ধু বা মেধাবী একজন বন্ধু তার পছন্দের মত একটি বিষয় নিয়ে এগোতে চাইছে, কিন্তু তোমার সেই বিষয়টির উপর কোন আগ্রহ নেই। আবার মনের মধ্যে দ্বিধা তৈরি হতে পারে যে, সে ভালো ছাত্র হওয়ায় সে যে বিষয়টি নিচ্ছে, সেটি নিয়ে এগোলোই হয়তো তোমার ভালো হবে। তবে এ ধারণাও সম্পূর্ণ ভুল। কার কোন বিষয়ের উপর বেশি জ্ঞান রয়েছে বা ইন্টারেস্ট রয়েছে, সেটির উপর ভিত্তি করেই কোন স্ট্রিম বেছে নেওয়া উচিত। এজন্য কখনোই অন্য কারো সাথে নিজের তুলনা করবে না, সব সময় নিজের বেস্ট দিয়েই চেষ্টা করতে হবে।

See also  অবশেষে MAKAUT CET এর পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হলো। কবে জানুন?

৩. অনেক সময় অনেক আত্মীয়রা, বন্ধু-বান্ধবরা, এমনকি অভিভাবকরা-ও বিভিন্ন বিষয় নেবার জন্য তোমাদের প্রভাবিত করতে পারে। যেমন অনেকে বলতে পারে যে, কমার্স নিয়ে পড়লে খুব তাড়াতাড়ি চাকরি পাওয়া যায় বা আর্টস নিয়ে পড়লে চাকরি পাওয়ার কোন সম্ভাবনাই নেই। তবে এই সমস্ত ধারণা সম্পূর্ণটাই ভুল। আবার অনেক সময় পরিবার থেকে প্রভাবিত করা হয় এমন ভাবে, তোমার কোন দূর সম্পর্কের আত্মীয় বা কোন দাদা অমুক একটা স্ট্রিম নিয়ে পড়াশোনা করে এখন বড় জায়গায় চাকরি করছে, তাই তোমারও সেই স্টিম নিয়ে পড়াশোনা করা উচিত। তবে এক্ষেত্রেও নিজের পছন্দের স্ট্রিম বেছে নিতে হবে। কখনো কারো কথায় প্রভাবিত হওয়া যাবে না।

তুমি যে বিষয়টি নিয়েই পড়ো না কেন, সেটিই তোমাকে ভবিষ্যতে সাহায্য করবে।

৪. কোন স্ট্রিম বেছে নেওয়ার আগে সেই স্ট্রিম নিয়ে ভবিষ্যতে স্কোপ কি কি আছে, সেই বিষয়ে জ্ঞান রাখা ভালো। বর্তমানে প্রায় সকলের কাছে রয়েছে ইন্টারনেট এই জন্য ইন্টারনেট ব্যবহার করে খুব সহজেই দেখে নিতে পারবে যে তোমার পছন্দের স্ট্রিম নিয়ে পড়াশোনা করলে ভবিষ্যতে কোন কোন কাজের সুযোগ রয়েছে, কোন কোন চাকরির সুযোগ রয়েছে ইত্যাদি।

See also  NEET বিতর্ক অব্যাহত! তার মাঝেই আবারও একটি পরীক্ষা পিছিয়ে দিলো NTA! জানুন বিস্তারিত।

এবার সংক্ষেপে বলা যাক কোন কোন স্ট্রিম নিয়ে পড়াশোনা করলে ভবিষ্যতে কোন কোন সুযোগ রয়েছে। তবে তোমরা যদি ইন্টারনেটে এই বিষয়গুলি নিয়ে সার্চ করা শুরু করো, তাহলে দেখতে পাবে যে আরও বহু সুযোগ রয়েছে, যেগুলো হয়তো তোমাদের ধারণারও বাইরে।

সায়েন্স নিয়ে পড়লে কি হবে?

সয়েন্স নিয়ে পড়াশোনা করলে ভবিষ্যতে সুযোগের সম্ভাবনা সব থেকে বেশি। উচ্চ মাধ্যমিক স্তর থেকে বিজ্ঞান বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করলে ভবিষ্যতে অনেক সুযোগ রয়েছে।

পদার্থবিদ, পরিবেশবিদ, গণিতবিদ, ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, বিজ্ঞানী ইত্যাদি হওয়া যায় সায়েন্স নিয়ে পড়াশোনা করলে।তাছাড়া ওয়েস্ট বেঙ্গল ফরেস্ট সার্ভিস, ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস ইত্যাদি পরীক্ষায় বসার জন্য উদ্ভিদবিদ্যা, জীববিদ্যার মতো বিষয়গুলি খুব কাজে লাগে। অংক এবং অন্যান্য বিজ্ঞানের বিষয়গুলির শিক্ষক হবারও সুযোগ রয়েছে বিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করলে।

ফুড টেকনোলজি নিয়ে স্নাতক কোর্স সম্পূর্ণ করলে বড় কোন খাদ্য প্রস্তুত সংস্থায় কাজ করার সুযোগ পাওয়া যায়।

এছাড়া বিজ্ঞান বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করলে ভবিষ্যতে চাকরির পরীক্ষাগুলিতে সুবিধা হয় অংক এবং বিজ্ঞানের দিক থেকে। তাছাড়া বিজ্ঞান বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করলে মোটামুটি সব রকম চাকরির পরীক্ষাতেই বসতে পারবে তোমরা।

আর্টস নিয়ে পড়লে কি হবে?

আগে ধারণা ছিল যে পিছনের সারির ছেলে মেয়েরাই শুধুমাত্র আর্টস নিয়ে পড়াশোনা করে। তবে বর্তমানে সেই ধারণা সম্পূর্ণ ভুল , কারণ এখন অনেক মেধাবী ছাত্রছাত্রীরাও মাধ্যমিকের পর আর্টস নিয়ে পড়াশোনা শুরু করে।

ইতিহাস নিয়ে পড়াশোনা করলে ভবিষ্যতে প্রত্নতত্ত্ব নিয়ে কাজ করা যায় এবং জিওলজিক্যাল সার্ভে, অর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার মত সংস্থাগুলিতে কাজ করার সুযোগ মেলে।

ভূগোল নিয়ে পড়াশোনা করলেও ভবিষ্যতে অনেক রকম সুযোগ রয়েছে। তবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অংক কাজে লাগতে পারে বলে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে ভূগোলের পাশাপাশি অংক বিষয়টি রাখা খুবই জরুরী।

See also  বদল হলো স্কুলের সময়। জুন মাসে কখন স্কুলের সময় হলো জানুন।

এছাড়া ভূগোল বিষয় নিয়ে স্নাতক হবার পর কার্টোগ্রাফার হিসেবে কাজ করা যায়। জিওগ্রাফিক ইনফরমেশন সিস্টেম বা জি. আই.এস অফিসার পদের কাজ করা যায়। তাছাড়া আবহাওয়া দপ্তর, অর্থনীতি, ব্যাংকিং থেকে শুরু করে আরো বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করার সুযোগ মেলে।

আর্টস নিয়ে পড়ে আরো যে পেশাগুলোতে যুক্ত হওয়া যায় তেমন কটি পেশা হলো: শিক্ষক , অভিনেতা, মিউজিসিয়ান, ফটোগ্রাফার ,কলাকার ,লেখক, নাট্যবিদ ইত্যাদি।

কমার্স নিয়ে পড়লে কি হবে?

যারা রান্না করতে ভালোবাসেন তারা হোটেল ম্যানেজমেন্ট নিয়ে পড়াশোনা করতে পারেন বা চার্টার অ্যাকাউন্ট হতে গেলেও কমার্স নিয়ে পড়াশোনা করতে হয়।

বর্তমানে ব্যাচেলার অফ ব্যাংকিং ইন্সুরেন্স ,ব্যাচেলার অফ ফিনান্সিয়াল মার্কেটিং পড়ার সুযোগ রয়েছে ।যেখানে পড়তে পড়তেই তোমরা সরাসরি ক্যাম্পাসিং এর মাধ্যমে কয়েক লক্ষ টাকার চাকরি পেয়ে যেতে পারো।

এমবিএ করে বড় বড় মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে উচ্চপদস্থ কর্মচারী হিসেবে কাজ করার সুযোগ পেতে পারো। ফিন্যান্স নিয়ে পড়াশোনা করলে যে কোন বড় কোম্পানির ফিনান্স কন্ট্রোলার, ফিনান্স ম্যানেজার ইত্যাদি পদে কাজ করার সুযোগ পাওয়া যায়।

কমার্স নিয়ে পড়ে যে পেশাগুলিতে যাওয়া যায় তেমন কয়েকটি পেশা হলো: হিসাব রক্ষক, ব্যবসায়িক পরিচালক, বাণিজ্য পরিচালক, পরিবহন পরিচালক, জার্নালিস্ট, কাস্টমার কেয়ার প্রতিনিধি ইত্যাদি।

তবে শুধুমাত্র এই কয়টি অপশন নয়, প্রত্যেকটি বিষয়ের ক্ষেত্রে আরো বহু স্কোপ রয়েছে যেগুলি সম্পর্কে লিখে হয়তো শেষ করা সম্ভব নয়। ইন্টারনেটে সার্চ করলে তোমরা এমন কয়েকশো স্কোপের ব্যাপারে জানতে পারবে। এবার তোমরা বুঝে শুনে সিদ্ধান্ত নিতে পারো যে, মাধ্যমিকের পর কোন বিষয়টি নিলে তোমাদের ভবিষ্যতে ভালো হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

RELATED ARTICLES

Most Popular