HomeNewsসরস্বতী পুজোর আগেই 6 শতাংশ বকেয়া সহ বেতন বৃদ্ধি, নোটিশ প্রকাশিত।

সরস্বতী পুজোর আগেই 6 শতাংশ বকেয়া সহ বেতন বৃদ্ধি, নোটিশ প্রকাশিত।

রাজ্য সরকারের সরকারি কর্মচারী এবং রাজ্য সরকারের মধ্যে বহুদিন ধরেই বকেয়া মহার্ঘভাতা (DA) নিয়ে মামলা চলছে। তারই সাথে চলছে রাজ্যের বিরুদ্ধে হাইকোর্ট অবমাননার মামলা। সুপ্রিম কোর্টে রাজ্য সরকার এবং রাজ্য সরকারের সরকারি কর্মচারীদের সংগঠনের মধ্যে চলছে তৃণমূল লড়াই। বহুদিন ধরে বকেয়া মহার্ঘ ভাতা না পাওয়ায় রাজ্য সরকারের সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে রয়েছে তুমুল ক্ষোভ।

এই পরিস্থিতির মধ্যেই রাজ্য সরকারের সরকারি কর্মচারীদের জন্য রয়েছে সুখবর। রাজ্য সরকারের তরফ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলা হয়েছে সরস্বতী পুজোর আগেই বকেয়া সহ ৬ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি হতে চলেছে সরকারি কর্মচারীদের।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে যে আগামী দিনে পরপর তিনটি ধাপের মাধ্যমে সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া মহার্ঘভাতা (Dearness allowence) মিটিয়ে দেওয়া হবে। বকেয়া মহার্ঘ ভাতা মেটানোর জন্য রাজ্য অর্থ দপ্তরের কাছে টাকার অর্ডারও পাঠানো হয়েছে।

তিনটি কিস্তির মাধ্যমে কিভাবে বকেয়া মহার্ঘ ভাতা শোধ করা হবে?

  • প্রথম কিস্তির বকেয়া টাকা আগামী মাসেই দেওয়া হবে সরকারি কর্মচারীদের।
  • আগামী মে মাসে দেওয়া হবে দ্বিতীয় কিস্তির বকেয়া টাকা।
  • ডিসেম্বর মাসে দেওয়া হবে তৃতীয় কিস্তির বকেয়া টাকা।
  • সামনের মাস অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাস থেকে সরকারি কর্মচারীরা এই টাকা পাবেন। প্রায় 1600 কর্মী, যারা হাইকোটে কাজ করেন তারা বহুদিন ধরে এই বকেয়া 6 শতাংশ টাকা দাবি করছিলেন। অবশেষে আন্দোলনের ফলে জয়লাভ করলেন তারা।
See also  কবে থেকে পরীক্ষার্থীরা মাধ্যমিকের এডমিট কার্ড পাবে? জানালো মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

১৯৯৬ সালে হাইকোর্টের কর্মীরা রাজ্য সরকারের কাছে ভাতার আবেদন করেন। আবেদন নাকচ করে দেয় রাজ্য সরকার। এরপর কর্মীরা অভিযোগ করেন হাইকোর্টে এবং তারপর সুপ্রিমকোর্টে। সেই মামলা পরে আবার হাইকোর্টে ফিরে আসে এবং কর্মীদের দাবি মেনে নেয় সরকার। ওই সময়ের পর থেকে যারা চাপ নিতে যোগদান করবেন তাদেরকে ১২ শতাংশ হাইকোর্ট ভাতা দেওয়ার ঘোষণা করা হয় সরকারের পক্ষ থেকে। মূল বেতনের ১২ শতাংশ হারে এই ভাতা দেওয়া হতো।

২০২০ সালের জানুয়ারি মাসের নতুন পে কমিশন (Pay Commission) তৈরি হবার পর কর্মীদের এই ভাতার পরিমাণ ১২ শতাংশ থেকে কমিয়ে 6 শতাংশ করা হয়। প্রায় ২৩ মাস ধরে কর্মীদেরকে ৬ শতাংশ হারেই ভাতা দেওয়া হচ্ছিল। এই নিয়ে কর্মীরা বকেয়া টাকা পাওয়ার জন্য আন্দোলন শুরু করেন।

সম্প্রতি রাজ্যের অর্থ দপ্তর এই কর্মীদের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা মিটিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ০১-০১-২০২০ তারিখ থেকে ৩১-০৭-২০২০ পর্যন্ত কর্মচারীদের যতটা বকেয়া বেতন রয়েছে তা আগামী তিনটির কিস্তির মাধ্যমে শোধ করে দেওয়া হবে সরকারের পক্ষ থেকে। ২০২৩ সাল শেষ হওয়ার আগেই কর্মচারীরা তাদের প্রাপ্য বকেয়া হাইকোর্ট ভাতা (Highcourt Allowance) পেয়ে যাবেন।

See also  CGL ও CHSL পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ করলো স্টাফ সিলেকশন কমিশন! কবে পরীক্ষা? জানুন বিস্তারিত।
RELATED ARTICLES

Most Popular