HomeEducation Newsকিভাবে হতে পারবেন ED অফিসার? কাজ কি এনাদের? জেনে নিন বিস্তারিত।

কিভাবে হতে পারবেন ED অফিসার? কাজ কি এনাদের? জেনে নিন বিস্তারিত।

পশ্চিমবঙ্গবাসীদের কাছে ইডি শব্দটা এখন প্রায় সকলেরই জানা। আমরা সকলেই জানি চারিদিকে দুর্নীতির মধ্যে ইডি অফিসারেরা কিভাবে তাদের কাজ করে চলেছেন। আর তাদের কাজ করার ধরন দেখে বর্তমানে যুব সমাজের অনেকেই ভবিষ্যতে একজন ED অফিসার হবার ইচ্ছা প্রকাশ করছেন। আজকের এই প্রতিবেদনে আলোচনা করা হবে কিভাবে হতে পারবেন ED অফিসার, তাদের কাজ কি, কিভাবে তাদের নিয়োগ করা হয়, কোন পরীক্ষার মাধ্যমে আপনারা এই পদে চাকরি পেতে পারেন – সেই সম্পর্কে সম্পূর্ণ বিস্তারিত তথ্য।

ED কি বা কারা? (Who are ED?)

দেশজুড়ে চলতে থাকা বিভিন্ন দুর্নীতি যারা দমন করে থাকেন এবং দোষীদের শাস্তি দিয়ে থাকেন তাদেরই বলা হয় ইডি অফিসার। এনারা কেন্দ্র সরকারের অধীনে কাজ করে থাকেন। কোন রাজ্য থেকে দুর্নীতি সংক্রান্ত কোন তথ্য এলে এনাদের পাঠানো হয় সেই রাজ্যে দুর্নীতি দমন করার জন্য এবং দোষীদের গ্রেপ্তার করে শাস্তি দেওয়ার জন্য। সব ধরনের দুর্নীতি ঠিক নয়, কেবলমাত্র আর্থিক দুর্নীতি বা অর্থ তছরুপের কোন বিষয় ঘটলে ইডি অফিসাররা সেই বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করেন এবং দোষীদের গ্রেপ্তার করা হয়। ED এর পুরো নাম হলো: Enforcement Directorate ।

See also  পরীক্ষার পরের দিনই বাতিল পরীক্ষা! জালিয়াতির তদন্ত করবে CBI! জানুন বিস্তারিত।

ED-এর দপ্তর কোথায় কোথায় আছে?

সদর দপ্তর: দিল্লি

আঞ্চলিক দপ্তর: কলকাতা(Kolkata), দিল্লি(Delhi), চেন্নাই(Chennai), মুম্বাই(Mumbai), চন্ডীগড়(Chandigarh)

প্রতিটি আঞ্চলিক দপ্তরে থাকেন একজন করে প্রশাসনিক কর্তা।

জোনাল অফিস(Zonal Office): পুনে, ব্যাঙ্গালোর, চন্ডিগড়, দিল্লি, কোচি সহ ভারতের মোট ১৬ টি জায়গায় রয়েছে ইডির জোনাল অফিস।

প্রতিটি জোনাল অফিসে কর্মরত থাকেন একজন যুগ্ম আধিকারিক।

সাব-জোনাল অফিস(Sub-zonal Office): ম্যাঙ্গালোর, ভুবনেশ্বর, নাগপুর, মাদুরাইসহ ভারতের মোট ১২টি জায়গায় রয়েছে ইডি ডিপার্টমেন্টের সাব জোনাল অফিস।

প্রত্যেকটি সাবজোনাল অফিসে একজন করে উপ আধিকারিক কর্মরত থাকেন।

ইডি(ED)-র কাজ কি?

আর্থিক দুর্নীতি(Financial-Corruption) বা অর্থ তছরুপের কোন বিষয় ঘটলে ইডি অফিসাররা সেই বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করেন এবং দোষীদের গ্রেপ্তার করা হয়। সাধারণ মাপের মানুষ থেকে বড় বড় নেতা মন্ত্রী এবং উচ্চপদস্থ ব্যাক্তিদের ক্ষেত্রেও সমান নীতি অনুসরণ করে ইডি অফিসারেরা।

কিভাবে হবেন ইডি অফিসার?(How to become an ED officer?)

দুটি উপায়ে ইডি অফিসার হওয়া যায়।

১.প্রতিবছর কেন্দ্র সরকারের তরফে স্টাফ সিলেকশন কমিশনের(Staff Selection Commission) পক্ষ থেকে বেশ কয়েকটি পরীক্ষার আয়োজন করা হয় তার মধ্যে একটি পরীক্ষা হল কম্বাইন্ড গ্রাজুয়েশন লেভেল পরীক্ষা (Combined Graduation Level Examination)। এই পরীক্ষাটিকে সংক্ষেপে বলা হয় CGL; আর এই পরীক্ষার মাধ্যমেই একজন ইডি অফিসার হিসেবে চাকরির সুযোগ মেলে।

See also  বদল হলো স্কুলের সময়। জুন মাসে কখন স্কুলের সময় হলো জানুন।

২. আবার কেন্দ্র সরকারের অন্য বিভাগে কর্মরত থাকা কোন ব্যক্তি যদি পদোন্নতি পান, সে ক্ষেত্রেও তিনি ইডি ডিপার্টমেন্টে চাকরির সুযোগ পেতে পারেন। এক্ষেত্রে তাঁর আলাদা করে সিজিএল পরীক্ষা দেওয়ার প্রয়োজন হবে না।

CGL পরীক্ষার পদ্ধতি কি?

প্রথমে ২০০ নম্বরের একটি প্রিলি (CGL TIRE I EXAM) পরীক্ষা নেওয়া হয়।

উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ৪০০ নম্বরের একটি পরীক্ষা দিতে হয়, সেটিকে বলা হয় টায়ার টু (CGL TIRE II EXAM)পরীক্ষা।

এরপর টায়ার থ্রি পরীক্ষাতে (CGL TIRE III EXAM) ১০০ নম্বরের প্রশ্ন আসে।

উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে নিয়োগ করা হয় বিভিন্ন পদে। মূলত গ্রুপ বি এবং গ্রুপ সি পদের জন্য এই নিয়োগ প্রক্রিয়া হয়। উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মধ্যে কিছু প্রার্থী ইডি ডিপার্টমেন্টে কাজ করার সুযোগ পান। বাকিরা কেন্দ্র সরকারের আরও বিভিন্ন দপ্তরে কর্মরত হন।

ইডি অফিসার হতে গেলে কোন বিষয়গুলি নিয়ে পড়তে হবে?

কম্বাইন্ড গ্রাজুয়েশন লেভেল পরীক্ষায় নিম্নলিখিত বিষয়গুলির ওপর প্রশ্ন আসে।

General Intelligence & Reasoning,
English Language & Comprehension,
Quantitative Aptitude
General Awareness

ইডি অফিসার হওয়ার জন্য বা সিজিএল পরীক্ষায় বসার জন্য আবশ্যিক যোগ্যতা কি কি?
(Essential Qualifications to be an ED Officer)

১. CGL পরীক্ষায় বসার জন্য নূন্যতম স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করতে হবে। ভারতের যেকোনো স্বীকৃত ইউনিভার্সিটি থেকে স্নাতক উত্তীর্ণ প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন এই পরীক্ষার জন্য।

See also  বদল হলো স্কুলের সময়। জুন মাসে কখন স্কুলের সময় হলো জানুন।

২. প্রার্থীকে অবশ্যই ভারতের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।

CGL পরীক্ষা কিভাবে নেওয়া হয়?

অনলাইনের মাধ্যমে সি জি এল পরীক্ষা দিতে হয়। এডমিট এবং পরিচয় পত্র দিয়ে নির্দিষ্ট পরীক্ষার সেন্টারে গিয়ে কম্পিউটারে বসে পরীক্ষা হয়। TCS বা এমন কোন সংস্থার অধীনে পরীক্ষার সেন্টার পড়ে।

ED-তে যোগদানের বয়সের সীমা কত?

প্রার্থীদের বয়স অবশ্যই ১৮ থেকে ৩০ বছর বয়সের মধ্যে হতে হবে। সংরক্ষিত শ্রেণীর প্রার্থীরা বয়সের ছাড় পান।

তাই একজন ইডি অফিসার হিসেবে ভবিষ্যতে সুপ্রতিষ্ঠিত হতে চাইলে কম্বাইন্ড গ্রাজুয়েশন লেভেল পরীক্ষার প্রস্তুতি নিন সঠিকভাবে। এছাড়া আরও বিস্তারিত তথ্যের জন্য আপনারা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট ডিপার্টমেন্টের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট বা স্টাফ সিলেকশন কমিশনার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারেন।

– তন্ময় দেবনাথ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

RELATED ARTICLES

Most Popular