HomeEducation Newsআঞ্চলিক ভাষায় শিক্ষাদানে জোর কেন্দ্রীয় সরকারের।

আঞ্চলিক ভাষায় শিক্ষাদানে জোর কেন্দ্রীয় সরকারের।

“আমার ছেলের বাংলাটা ঠিক আসেনা!”
এই উক্তির এবার ইতি টানার পথে এগোচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। ইংরেজি নয়, বরং এবার থেকে আঞ্চলিক ভাষাতে (Regional Language) শিক্ষাদানের ওপরেই বেশি জোর দিচ্ছে সরকার। গত ৩০ জুলাই, জাতীয় শিক্ষা নীতির (National Education Policy) তিন বছর পূর্তি উপলক্ষে বক্তব্য রাখার সময় এই বিষয়টি তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। আঞ্চলিক ভাষায় শিক্ষাদানের তরফে পাল্লা ভারী রাখেন তিনি তাঁর বক্তৃতার মাধ্যমে।

বর্তমান সরকারের আমলে জাতীয় শিক্ষার যে নীতি প্রণয়ন করা হয়েছে তাতে জোর দেওয়া হয়েছে আঞ্চলিক ভাষাতে শিক্ষাদানের ওপরেই। সেই লক্ষ্য পূরণে ইতিমধ্যেই উচ্চশিক্ষার সমস্ত বইগুলোকে আঞ্চলিক ভাষায় অনুবাদ (Translation in Native Language) করা শুরু করেছে শিক্ষা মন্ত্রক।

জাতীয় শিক্ষানীতির (National Education Policy) তিন বছরের পূর্তি উপলক্ষ্যে বক্তৃতা রাখার সময় আঞ্চলিক ভাষাতে শিক্ষাদানের প্রয়োজনীয়তা (Importance of Education) বোঝান প্রধানমন্ত্রী। ইউরোপের প্রসঙ্গ টেনে এনে তিনি বলেন যে ইউরোপের অধিকাংশ দেশে ছাত্রছাত্রীরা নিজেদের মাতৃভাষায় (Mother Tongue) অর্থাৎ নিজের আঞ্চলিক ভাষাতেই (Native Language) পড়াশোনা করে থাকেন।

এই প্রসঙ্গ টেনে আনার পরে আমাদের দেশের বহুভাষী লোক থাকতেও, এতো প্রতিভা (Talented) থাকা সত্ত্বেও নিজের আঞ্চলিক ভাষা (Regional Language) ব্যবহার মানে পিছিয়ে পরা; এই মনোভাবের কারণে দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

See also  অবশেষে MAKAUT CET এর পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হলো। কবে জানুন?

প্রধানমন্ত্রী বলেন যে আজ ভারতের স্বাধীনতার এতদিন পরে আমরা নতুন শিক্ষানীতিতে (New Policy of Education) মাতৃভাষার ওপরে জোর দিতে চলেছি পুরোনো ধারণা থেকে বেরিয়ে এসে। এরপরে তিনি খানিকটা মজার সুরেই বলেন যে তিনি কিন্তু বিদেশে গিয়েও নিজের ভাষাতেই কথা বলেন! তিনি নিজের ভাষা নিয়ে লজ্জাবোধ করেন না! সাধারণ মানুষের মনে এই ধারণা বদলানো হয়তো একদিনে সম্ভব না, সময় লাগবে কিন্তু তাও সম্ভব।

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে মাতৃভাষায় (Mother Tongue) শিক্ষা দেওয়ার উদ্দেশ্যে ইতিমধ্যেই সমাজবিজ্ঞান থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং বইয়ের (Engineering Book) ১২টি ভারতীয় ভাষায় অনুবাদ করা হচ্ছে। মোদীর কথায় আঁচ পাওয়া যায় যে নতুন প্রজন্মের নিজের ভাষার প্রতি যদি আত্মবিশ্বাস সঙ্গে থাকে তবে অবশ্যই প্রতিভার স্ফূরণ সঠিক ভাবে হওয়া সম্ভব। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন যে, কেউ যদি এর পরেও ভাষা নিয়ে রাজনীতি (Politics) করে বা বিভেদ সৃষ্টি করতে চায় তবে সেখানে রুখে দাঁড়ানোর জন্য তিনি আছেন।

এই প্রসঙ্গে তিনি কারো নাম না নিলেও অনেকেই মনে করছেন যে দক্ষিণের রাজ্যগুলির (West States) কথাই তিনি উল্লেখ করেছেন কারণ দক্ষিণের রাজ্যগুলি বহুদিন ধরেই মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সওয়াল জবাব করে থাকে তাঁর সব জায়গায় রাষ্ট্রীয় ভাষা ব্যবহারের জন্য।

See also  NEET বিতর্ক অব্যাহত! তার মাঝেই আবারও একটি পরীক্ষা পিছিয়ে দিলো NTA! জানুন বিস্তারিত।

মোদী দাবি করেন যে, দেশের IIT শিক্ষার কদর ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে বিদেশের মাটিতে। Tanzania এর Zinzibar এবং Abu Dhabi তে ভারতীয়দের উদ্যোগে স্থাপিত হচ্ছে IIT প্রতিষ্ঠান। আবার অন্য দিকে অস্ট্রেলিয়া-সহ একাধিক দেশ ভারতে তঁদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা গুজরাতে (Gujrat) খুলতে আগ্রহী বলে জানান প্রধানমন্ত্রী(Prime Minister)। এছাড়াও শিশুকাল থেকেই বাচ্চাদের মধ্যে প্রাকৃতিক বিপর্যয়, জলবায়ু পরিবর্তন, পরিবেশবান্ধব এনার্জি (Natural Disasters, Climate Change, Environmentally Friendly Energy) ইত্যাদি বিষয়ে সচতনতা বাড়ানোর জন্য বিশেষ যত্ন দেবার পরামর্শ স্কুলগুলিকে দেন প্রধানমন্ত্রী।

-Written by Riya Ghosh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

RELATED ARTICLES

Most Popular